• শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ১১:৪৪ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]

তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদের নেতৃবৃন্দের সাথে সাম্প্রতিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের মতবিনিময়

নিজস্ব প্রতিনিধি
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২১

তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদের নেতৃবৃন্দের সাথে সাম্প্রতিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের মতবিনিময়

আমাদের রংপুর ডেক্স।। সাম্প্রতিক তিস্তা দীর দুপারের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের মাঝে তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দের মতবিনময় করছেন।

বৃহস্পতিবার বিকালে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জের কাকিনা এলাকায় বিনবিনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বীরমুক্তিযোদ্ধা নুরল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম হক্কানী। বিশেষ অতিথি ছিলেন তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সফিয়ার রহমান, স্টান্ডিং কমিটির সদস্য বখতিয়ার রহমান শিশির,আব্দুল হাকিম, তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও সংগ্রাম পরিষদের কালীগঞ্জ উপজেলা শাখার সহ সভাপতি অধ্যক্ষ ড. এএসএম মনওয়ারুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম হেলাল, যুগ্ম সম্পাদক নজরুল ইসলাম, সদস্য আব্দুল হামিদ।
নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকার ক্ষতিগ্রস্থদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মেহের আলী, সফিকুল ইসলাম, মনোয়ার হোসেন,শাকিরুল ইসলাম,হযরত আলী, আবু বক্কর সিদ্দিক,মমতাজ উদ্দিন।
বক্তারা তিস্তা নদীর মহাপরিকল্পনা দ্রুত বাস্তবায়নসহ ৬ দফা বাস্তবায়নের জোর দাবি জানান। ৬ দফা দাবিসমূহ; (১) তিস্তা নদী সুরক্ষায় বিজ্ঞানসম্মতভাবে ‘তিস্তা মহাপরিকল্পনা ‘ দ্রুত বাস্তবায়ন।অভিন্ন নদী হিসেবে ভারতের সঙ্গে ন্যায্য হিস্যার ভিত্তিতে তিস্তা চুক্তি সম্পন্ন,তিস্তা নদীতে সারা বছর পানির প্রবাহ ঠিক রাখতে জলাধর নির্মাণ।
(২) তিস্তা নদীর শাখা-প্রশাখা ও উপ- শাখাগুলোর সঙ্গে নদীর পূর্বেকার সংযোগ স্থাপন ও নৌ চলাচল পুনরায় চালু।
(৩) ভূমিদস্যুদের হাত থেকে অবৈধভাবে দখলকৃত তিস্তাসহ তিস্তার শাখা প্রশাখা দখলমূক্ত করা। নদীর বুকে ও তীরে গড়ে ওঠা সমস্ত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ এবং নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ।
(৪) তিস্তা ভাঙ্গনে, বন্যা ও খরায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের স্বার্থসংরক্ষণ। নদীভাঙ্গনের শিকার ভূমিহীন ও মৎস্যজীবিসহ নদী ভাঙ্গনে উদ্ভাস্থ মানুষের পূর্নবাসন।
(৫) তিস্তা মহাপরিকল্পনায় তিস্তা নদী ও তিস্তা তীরবর্তী কৃষকদের স্বার্থ সুরক্ষায় কৃষক সমবায় এবং কৃষিভিত্তিক শিল্প কলকারখানা গড়ে তোলা।
(৬) মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে ক্ষতিগ্রস্থদের ক্ষতিপূরণ এবং প্রস্তাবিত এলাকায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে তবস্তা পাগের মানুষদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করা।


এ জাতীয় আরও খবর :